fbpx

৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

Pinterest LinkedIn Tumblr +

সারাদেশে নির্মিত ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের মধ্যে উদ্বোধনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ৫০টি। সেগুলো আজ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মডেল মসজিদ টেপরা, শিবালয় উপজেলা, মানিকগঞ্জ। ছবি: ইয়াসিন কবির জয়

আজ বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকালে গণভবন থেকে একযোগে এই ৫০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করেন তিনি। নিজস্ব পরিকল্পনায় বড় বাজেটে এতগুলো অবকাঠামো নির্মাণ করলেন সরকার প্রধান।

গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। ছবি: বিটিভি ওয়ার্ল্ডের সৌজন্যে

গতকাল বুধবার (৯ জুন) ধর্ম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান। এর আগে, গত মঙ্গলবার ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইনের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে ‘মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় মোট ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণ করা হচ্ছে। তারমধ্যে, প্রথম পর্যায়ে নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে ৫০টি মডেল মসজিদের।

মডেল মসজিদ টেপরা, শিবালয় উপজেলা, মানিকগঞ্জ। ছবি: সংগৃহীত

সূত্র জানায়, সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৯ লাখ ৯০ হাজার ৩৬ বর্গমিটার আয়তনে নির্মিতব্য এসব মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের প্রতিটির নির্মাণ ব্যয় কমপক্ষে ১২ থেকে সর্বোচ্চ ১৫ কোটি টাকা। এসব মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে পবিত্র কোরআন হাদিসের জ্ঞান অর্জনের জন্য লাইব্রেরিতে পড়াশোনার সুযোগ পাবেন ৩৪ হাজার মানুষ। এছাড়া, প্রতিদিন চার লাখ ৪০ হাজার ৪৪০ জন পুরুষ ও ৩১ হাজার ৪০০ জন নারীর নামাজ পড়ার সুবিধা থাকবে এসব মসজিদে। পাশাপাশি, মসজিদগুলোতে সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে প্রতিদিন ৬ হাজার ৮০০ জন গবেষকের গবেষণার এবং এর সাথে ৫৬ হাজার মুসল্লির দ্বীনি দাওয়াতের কার্যক্রম পরিচালনার। এছাড়া থাকছে, প্রতিবছর ১৪ হাজার শিক্ষার্থীর কোরআন হাফেজ করার সুবিধা, ১৬ হাজার ৮০০ শিশুর প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন এবং ২ হাজার ২৪০ জন অতিথির আবাসনের সুযোগ।

এ বিষয়ে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, এর আগে কোনো সরকারের আমলে একসাথে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের রেকর্ড নেই। যখন ৫৬০টি মসজিদের নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ শেষ হবে, তখন এটি হবে বিশ্ব রেকর্ড।

Share.

Leave A Reply