fbpx

আবাহনী-মোহামেডান পুরোনো উত্তেজনা ফিরিয়ে আনলো সাকিব বিতর্ক

Pinterest LinkedIn Tumblr +

বৃষ্টি-চার ছক্কার লড়াই ছাপিয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) সপ্তম রাউন্ডের হাই ভোল্টেজ আবাহনী- মোহামেডানের ম্যাচ ছিল শুধুই সাকিবময়। মোটা দাগে বললে সাকিব বিতর্কে রঙ পেয়েছে আবাহনী-মোহামেডান দ্বৈরথ। দুদফা স্ট্যাম্পে আঘাত করা, ডাগ আউটের উত্তেজনার ম্যাচে জিতেছে মোহামেডান। বৃষ্টি আইনে সাদা-কালো শিবিরের জয় ৩১ রানে।

দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইয়ে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মোহামেডান অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। দলীয় ৩৭ রানে প্রথম উইকেট হারায় মোহামেডান, সাজঘরে ফেরার আগে পারভেজ হোসেন ইমন ২৬ বলে করেন ২৬ রান । এদিন চার নম্বরে নামেন সাকিব, ২৭ বলে খেলেন দলীয় সর্বোচ্চ ৩৭ রানের ইনিংস। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মাহমুদুল হাসানের কল্যানে মোহামেডান বোর্ডে জড়ো করেছে ১৪৫ রান।

জবাবে ব্যাটিং করতে নেমে প্রথম বলেই উইকেট হারায় আবাহনী। মোহাম্মদ নাঈম শেখকে বোল্ড করেন শুভাগত হোম । এক বল পর আবার শুভাগতের আঘাত, এবার তার শিকার স্বাধীন। পরের ওভারে আফিফকে ফিরিয়ে আবাহনীর একপ্রকার কোমড় ভেঙে দেন শুভাগত হোম। ম্যাচের নাটকীয়তা শুরু পঞ্চম ওভারে। আগের দুই বলে দশ রান দেওয়া সাকিবের বলে প্ল্যাম্ব এলবিডব্লিউর আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দিলে লাথি মেরে স্ট্যাম্প ভেঙে ফেলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এগিয়ে যান আম্পায়ারের কাছে, জানতে চান আউট না দেওয়ার কারন। পরের ওভারে আকাশ মেঘলা হয়ে আসে, বৃষ্টি না আসলেও ওই ওভারের একবল আগেই খেলা বন্ধ করে দেন আম্পায়ার। সেখানেই চটে যান সাকিব। স্ট্যাম্প উপড়ে ফেলে দেন, মাঠের বাইরে গিয়ে ঝগড়া লাগে আবাহনী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গে।

ঘন্টাখানেক পর মাঠে খেলা গড়ালে আবাহনীর লক্ষ্য দাঁড়ায় ৯ ওভারে ৭৬। ১৯ বলে দরকার ছিল ৪৫ রান। আবাহনীর জন্য মোটামুটি অসম্ভবের কাছাকাছি ছিল এ লক্ষ্য। শেষ পর্যন্ত আবাহনীর পরাজয় ৩১ রানে। ম্যাচসেরা শুভাগত হোম।

Share.

Leave A Reply