fbpx

এ বছর বজ্রপাতে মৃত্যু ৩২৯

Pinterest LinkedIn Tumblr +

২০২১ সালের চলতি ৯ মাসেই দেশে বজ্রপাতে অন্তত ৩২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ববস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান।

প্রতিমন্ত্রী জানান, বজ্রপাতে সবগুলো মৃত্যুই হয়েছে খোলা স্থানে। সরকার তাই বজ্রপাত আশ্রয়কেন্দ্র করার পরিকল্পনা করছে।

১২ অক্টোবর (মঙ্গলবার) আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশও বুধবার নানা আয়োজনে দিবসটি পালন করবে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, ২০১৫ সালে বজ্রপাতকে জাতীয় দুর্যোগ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। সে বছর বজ্রপাতে মারা গিয়েছিলেন ২২৬ জন। এরপর ২০১৬ সালে ৩৯১ জন এবং ২০১৮ সালে ৩৫৯ জনের মৃত্যু হয় বজ্রপাতে।২০১৯ সালে সেই সংখ্যা কিছুটা কমে আসে, ১৯৮ জনের মৃত্যু হয় ওই বছর।

গত এক দশকে ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতির পাশাপাশি উপকূলীয় এলাকায় আশ্রয়কেন্দ্র স্থাপন ও জরুরি ভিত্তিতে জান-মাল রক্ষার ব্যবস্থাপনায় উন্নতি হয়েছে অনেক। তাতে ঘূর্ণিঝড়ে প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতি কমলেও বজ্রপাত ও বন্যার মতো দুর্যোগ শঙ্কা বাড়াচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভৌগোলিক অবস্থান ও জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবের কারণে বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম দুর্যোগপ্রবণ দেশ।দুর্যোগের কারণে নিয়মিত ক্ষয়ক্ষতির পরও ষাটের দশক পর্যন্ত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ধারণা ছিল মূলত ত্রাণ ও পুনর্বাসনকেন্দ্রিক।

এখন দুর্যোগে জীবন ও সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে দুর্যোগ সহনীয় টেকসই নিরাপদ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সরকার পরিকল্পিতভাবে কাঠামোগত ও অকাঠামোগত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

Share.

Leave A Reply