fbpx

করোনা দিনে প্রেম কিংবা বিষাদের কবিতা

Pinterest LinkedIn Tumblr +

শূন্য দশকের কবি তানজিম ইসলাম। আজ বিবিএস বাংলার পাঠকদের জন্য থাকছে তার একগুচ্ছ কবিতা।

০১
প্রাচীন একটা শহর যেন আমার শরীর জুড়ে…
আমি তোমার নিশ্বাসের শব্দ শুনতে পাই এখনও…
মনে হয় একটা শহরে একটাই সভ্যতা… একটাই জনপদ আর
আমি একলা একটাই স্মৃতিধারন করা কোন ভাস্কর…

০২
দূরপাল্লার সড়ক উন্মুক্ত হলেও তাতে আমার কী যায় আসে,
হে আমার দূরগামী বালিকা তোমাকে ছুতে দূরপাল্লার আকাশ উন্মুক্ত হোক
তুমিত জানই উচ্চতাভীতি আমার প্রবল
যে মেঘসন্ধ্যার তার বৃষ্টিটাতো রাতের…অথচ সকাল থেকেই বিষণ্ণ জমাতে থাকে আকাশ…
ক্ষত হয়ে যাওয়া গোপন এখনো পুষে রেখেছি তোমার শহরে…
তবুও আমার বৃষ্টি তোমার কাছাকাছি নামবেনা কোনদিন…

০৩
বুকের ভিতর একটা মায়ার ফ্যাক্টরি
ওখানে কাজ করে স্মৃতিশ্রমিকেরা
মায়ার উতপাদন বেড়ে যাচ্ছে
অথচ বাজারে এসব অচল
লোকসানে আছে হৃদয়…মানুষগুলো একদমই মায়া বুঝেনা..
০৪
একবার হলেও আমি ফুলগাছ হতে চাই শুধু তোমার সাথে পরাগায়নের ইচ্ছায়
পাপের কর্মসূচি এখানে নেই শুনেছি
তাই বলে ভেবোনা তোমাকেও গাছ হতে বলছি
তোমার সকল ভাঙ্গনপ্রবন সীমানায়
আমার বুকের ভেতর জমে উঠা পাথরগুলো দিয়ে বাঁধ টেনে দিব…
এই যে জোয়ার পাথরের গায়েই লিখে যাক যাবতীয় মুদ্রা..
সুরক্ষিত থাকুক গোপন শিলালিপি

০৫
মনে পড়ে লকডাউনের ছুটির দুপুর..
মুখোমুখি বারান্দা…তোমার তোয়ালে প্যাঁচানো ভেজা চুল…
আমার হাতে এক কাপ চা.. গীতবিতানটা বুকে জড়ানো…
কোথায় যেন রবীন্দ্রনাথ ভেসে আসছে…
তোমার একটি হাত বারান্দা থেকে সোজা বের করে দিয়ে বৃষ্টি মাখানো..
তোমার কারচুপি দৃষ্টি…আমার অহেতুক পাজরের জোয়ার.
আর তোমার বারান্দার কোনে ঝুলে থাকা পার্পল কালারের অন্তর্বাস।

Share.

Leave A Reply