fbpx

ড. নীলিমা ইব্রাহিমের শততম জন্মদিন

Pinterest LinkedIn Tumblr +

১১ অক্টোবর শিক্ষাবিদ, সাহিত্যিক ও সমাজকর্মী ড. নীলিমা ইব্রাহিমের শততম জন্মদিন। ১৯২১ সালের ১১ অক্টোবর খুলনার বাগেরহাটে জমিদার প্রফুল­ রায় চৌধুরী ও কুসুম কুমারী দেবীর কোলে জন্মগ্রহণ করেন।

তার জন্মদিন উপলক্ষে বাংলাদেশ মহিলা সমিতি বছর ব্যাপি নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এই দিন তাঁর প্রতি সম্মান রেখে বাংলাদেশ মহিলা সমিতির বাংলা ওয়েব সাইট অবমুক্ত করা হবে। এছাড়া পাঁচ দিন ব্যাপি নাট্যেৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

থাকছে বছর ব্যাপি বিভিন্ন অনুষ্ঠান, সেমিনার ও ওর্য়াকশপ। রোববার বিকেলে বাংলাদেশ মহিলা সমিতির যুগ্ম সম্পাদিকা তামান্না রহমান স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

নীলিমা ইব্রাহিম ১৯৩৭ সালে খুলনা করনেশন গার্লস স্কুল থেকে ১৯৩৯ সালে কলকাতায় ভিক্টোরিয়া ইনস্টিটিউশন থেকে যথাক্রমে স্কুল লেভেল ও ইন্টার লেভেল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। পরবর্তীতে স্কটিশ চার্চ কলেজ থেকে কলা ও শিক্ষার উপরে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন, পরবর্তীতে ১৯৪৩ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা সাহিত্যের এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি ১৯৪৫ সালে ডাক্তার মোহাম্মদ ইব্রাহিমকে বিয়ে করেন। মোহাম্মদ ইব্রাহিম হলেন বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা এবং একজন জাতীয় অধ্যাপক। তার মূল নাম ‘শেখ আবু মোহাম্মদ ইব্রাহিম’। তিনি ১৯৬৫ সালে ডায়াবেটিক হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করেন যা বর্তমানে বারডেম হাসপাতাল নামে পরিচিত।

তিনি ছিলেন একজন পেশাগত কর্মী। তিনি যথাক্রমে খুলনা করনেশন গার্লস স্কুল, লোরেটো হাউস, ভিক্টোরিয়া ইনস্টিটিউশন এবং অবশেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। সেখানে তিনি ১৯৫৬ সালে অধ্যাপক নিযুক্ত হন।
১৯৭২ সালে বাংলা অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। নীলিমা ইব্রাহিম ১৯৫৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে বাংলা সাহিত্যে ডক্টরেটও অর্জন করেন। তিনি বাংলা একাডেমির চেয়ারপারসন হিসেবে এবং বিশ্ব নারী ফেডারেশনের দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের ভাইস চেয়ারপারসনের দায়িত্ব পালন করেন।

উলে­খ্য, নীলিমা ইব্রাহিম একুশে পদক, বাংলা একাডেমি পুরস্কার, মাইকেল মধুসূদন পুরস্কার, লেখিকা সংঘ পুরস্কার, বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী স্মৃতি পদক, অনন্য সাহিত্য পদক, বেগম রোকেয়া পদক, বঙ্গবন্ধু পুরস্কারসহ বহু পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। ২০০২ সালের ১৮ জুন তিনি মারা যান।

Share.

Leave A Reply