fbpx

 নিয়ম না মানায় ২০ লাখ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ

Pinterest LinkedIn Tumblr +

নিয়ম না মানায় গত মে ও জুন মাসে ভারতে ২০ লাখ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। বার্তা পাঠানোর নিয়ম লঙ্ঘন করায় এই অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করা হয়।

সংবাদ মাধ্যম বিবিসি বলছে, একজন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারী সর্বোচ্চ যতজনকে বার্তা ফরোয়ার্ড করতে পারেন, তার সীমা লঙ্ঘন করেছেন। ভারতের বিতর্কিত নতুন তথ্যপ্রযুক্তি আইন মেনে প্রথমবারের মতো মাসিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হোয়াইটসঅ্যাপ। সেখানেই ২০ লাখ অ্যাকাউন্ট বাতিলের তথ্য এসেছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বর্তমানে ভারতে ৪০ কোটির বেশি মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন। এদের মূল লক্ষ্য ছিল ভারতে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে ক্ষতিকর ও অনাকাঙ্ক্ষিত বার্তা আদান–প্রদান কমানো। হোয়াটসঅ্যাপ তাদের মেশিন লার্নিং প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিশ্বজুড়ে প্রতি মাসে ৮০ লাখের বেশি অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে।

এই মেসেজিং অ্যাপের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গত ১৫ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত ভারতে অস্বাভাবিক ও উচ্চহারে বার্তা পাঠানোর অভিযোগে ২০ লাখ অ্যাকাউন্ট বাতিল করা হয়।

দীর্ঘদিন ধরেই ভারতে অনলাইনে ভুয়া খবর ও তথ্য ছড়িয়ে পড়ায় হোয়াটসঅ্যাপ আলোচনায় আছে। দেশটিতে হোয়াটসঅ্যাপে ভুয়া বার্তা ছড়িয়ে সহিংসতার ঘটনাও ঘটেছে, কয়েকজন মারাও গেছেন।

হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা ব্যবহারকারীর অনুরোধ মেনে ভুয়া খবর ঠেকাতে এবং প্ল্যাটফর্মটির অপব্যবহার রোধে নিজস্ব প্রযুক্তি প্রয়োগ করেছে।

আর বিবিসি বলছে, যখন ভারতে প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠানগুলো নতুন প্রযুক্তি আইনের বিরুদ্ধে লড়াই করছে ঠিক তখন হোয়াটসঅ্যাপ তাদের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকেও সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, নতুন প্রযুক্তি আইন প্রয়োগ করলে হোয়াটসঅ্যাপের ব্যক্তিগত গোপনীয়তার বিষয়গুলো সুরক্ষিত থাকবে না।

Share.

Leave A Reply