fbpx

স্বাধীনতার পর দিনাজপুরে প্রথম ফাঁসি কার্যকর

Pinterest LinkedIn Tumblr +

দিনাজপুর জেলা কারাগারে প্রথমবারের মতো ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। বুধবার রাত ১২ টা ১ মিনিটে আবদুল হক নামের এক আসামির ফাঁসি কার্যকর হয়। স্বাধীনতার পর এই প্রথম দিনাজপুর কারাগারে কোন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির ফাঁসি কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেল সুপার মোকাম্মেল হোসেন।

মামলাসূত্রে জানা যায়, ২০০২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করেন আবদুল হক। পরে তার শ্বশুর বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। সে বছরের আগস্ট থেকে মৃত্যুদণ্ডের আগ পর্যন্ত দিনাজপুর জেলা কারাগারে বন্দী ছিলেন আবদুল হক।

২০০৭ সালের মে মাসে রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়। পরে যা হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্ট এবং রাষ্ট্রপতির ক্ষমার আবেদনেও বহাল থাকে। আবদুল হকের বাড়ি রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ভক্তিপুর চৌধুরীপাড়ায়।

বুধবার বিকেলে আবদুল হকের পরিবারের সদস্যরা তাঁর সাথে শেষ দেখা করে যান। রাতেই তার ফাঁসি কার্যকর হয়। এসময় কারাগারের ভেতর উপস্থিত ছিলেন, রংপুরের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি-প্রিজন) আলতাফ হোসেন, জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী, পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন, সিভিল সার্জন আবদুল কুদ্দুছ, চিকিৎসকসহ প্রশাসন ও জেলা কারাগারের কর্মকর্তারা।

Share.

Leave A Reply